ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৩ শাবান ১৪৪৫

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় হবে সুসংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয়: উপাচার্য

প্রকাশনার সময়: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২১:০১

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি সুসংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ রাসেল কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে আয়োজিত ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাব এর উদ্বোধন করে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

উপাচার্য ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, ‘জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়নকে পাথেয় করে এগিয়ে যাচ্ছে জাতীয় থেকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে। সেক্ষেত্রে গত দু'বছরে আমরা নানা কিছুর পত্তন করেছি, উদ্বোধন করেছি। নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি সুসংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলা হবে। আমরা কাজ করে যাবো। কারণ নানা ধরনের কূপমন্ডুকতা ছিন্ন করে এ পর্যন্ত এসেছি। আরও এগিয়ে যেতে চাই। যারা উদ্বোধন দেখে আতঙ্কিত হন তারা আজকেও দেখে রাখুন- আজকেও এখানে সংস্কৃতির আরও একটি চেরাগ উদ্বোধন হলে। যে চেরাগের মধ্যদিয়ে আলো জ্বলবে। সে আলোতে বিকশিত হবে সংস্কৃতি। আপনাদের নেশা আর কূপমন্ডুকতা যাবে পুড়ে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের গৃহীত উন্নয়ন প্রকল্পগুলো তুলে ধরে তিনি আরও বলেন, আমরা এখানে চারদিকে বেষ্টনী দিয়েছি, বৃক্ষরোপণ করেছি। আজ থেকে পাঁচ বছর পরে যখন বৃক্ষগুলো দাঁড়িয়ে যাবে তখন দেখবেন অরণ্যশোভিত মাঠ তখন কত সুন্দর লাগে।

তিনি দুটো নির্মিয়মান অট্টালিকা দেখিয়ে বলেন, তাকিয়ে দেখুন, আমরা এই দুটো সুউচ্চ অট্টালিকা নির্মাণ করেছি। অল্পকিছু দিন পর সেটাও উদ্বোধন হবে। আপনারা দূর থেকে হাপিত্যেশ করবেন। আমরা ধ্রুব '৭২ উদ্বোধন করেছি, যা দেশের প্রথম সংবিধান কেন্দ্রিক স্থাপনা ভাস্কর্য। যা দেখে আপনারা আতঙ্কিত হয়ে যান। চারিদিকে হবে উদ্বোধন, আমরা মঞ্চ করেছি জয়ধ্বনি মঞ্চ, আমরা মঞ্চ করেছি কদমতলা, আমরা বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য এলাকায় বঙ্গবন্ধু স্কয়ার করেছি। চারদিকে ছাত্রছাত্রীরা কবিতা আবৃত্তি করবে, গান গাইবে, নাটক করবে। এই নজরুলের নামে বিশ্ববিদ্যালয় হবে সুসংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয়।

ইনস্ট্রুমেন্ট ক্লাবের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করে উপাচার্য বলেন, তাদের যাত্রার জন্য আমাদের শুভকামনা থাকবে। এ ধরনের উদ্যোগ তোমরা আরও বেশি গ্রহণ করে যাও। বিশ্ববিদ্যালয় ও স্থানীয় প্রশাসন তোমাদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবে।

এসময় আরও বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর ড. আতাউর রহমান, ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুয়েল আহমেদ, বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধান, প্রক্টর সঞ্জয় কুমার মুখার্জী, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দফতরের পরিচালক ড. মোহাম্মদ মেহেদী উল্লাহ প্রমুখ।

এসময় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ মাসুম হাওলাদার, ত্রিশালের সার্কেল এএসপি অরিত্র কুমার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাসান আবদুল্লাহ আল মাহমুদসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ইনস্ট্রুমেন্ট ক্লাবের যাত্রা শুভ হোক মন্তব্য করে ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুয়েল আহমেদ ক্লাবের জন্য কী-বোর্ড ও সাউন্ড সিস্টেম উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হবে বলেও মঞ্চে ঘোষণা দেন।

উল্লেখ্য, উদ্বোধনী অধিবেশন শেষে 'মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত ক্যাম্পাস' কনসার্টে ব্যান্ডদল এডভারব, মেঘদল ও ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাবের সদস্যরা তাদের পরিবেশনা উপস্থাপন করেন।

নয়া শতাব্দী/এসআর

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ

x
Naya Shatabdi