সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

মেয়র খোকনের উন্নয়নের ছোঁয়ায় পাল্টে যাচ্ছে বরিশাল

প্রকাশনার সময়: ১৫ মে ২০২৪, ২২:১৩ | আপডেট: ১৬ মে ২০২৪, ০৭:৩৮

উন্নয়নের মহাকর্মযজ্ঞে পাল্টে যাচ্ছে বরিশাল নগরের চিত্র। প্রথম ধাপেই নগরের প্রায় দেড় শতাধিক সড়ক ও ড্রেনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। বিনোদন কেন্দ্রগুলোতেও সংস্কারের ছোঁয়া লেগেছে। জনদুর্ভোগ এড়াতে দুই বাস টার্মিনালেরও চিত্র পাল্টে গেছে। বিসিসির দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মেয়র আবুল খায়ের আবদুল্লাহ (খোকন সেরনিয়াবাত) এর নেতৃত্বে উন্নয়নের ছোঁয়ায় আগামী ৬ মাসের মধ্যে নগরে আমুল পরিবর্তন ঘটতে যাচ্ছে। এতে বেশ খুশি নগরের সাধারণ জনগণ।

সূত্রমতে, গত বছ‌রের ১৪ নভেম্বর ব‌রিশাল সি‌টি কর‌পো‌রেশ‌নের দা‌য়িত্বগ্রহণ ক‌রেন মেয়র আবুল খা‌য়ের আব্দুল্লাহ। এরপর গত মঙ্গলবার (১৪ মে) তার পরিষদের ৬ মাস হ‌লো। মাত্র ৬ মা‌সের মাথায় মেয়র খোকন ব‌্যাপক উন্নয়ন কাজ হা‌তে নি‌য়ে‌ছেন তি‌নি।

নগ‌রের ২৬ নং ওয়ার্ডের চরজাগুয়া কীর্তনখোলা নদীর তী‌রে সস্প্রতি সড়ক নির্মাণের উদ্বোধ‌ন ক‌রেন মেয়র খোকন। অজপাড়াগাঁয়ের এ সড়‌কে উন্নয়‌নের ছোয়ায় বিস্মিত সেখানকার বৃ‌দ্ধ আ. আজিজ। তি‌নি ব‌লেন, এই রাস্তা কখনও পাঁকা হ‌বে আশা ক‌রি‌নি। নগ‌রের শে‌রে বাংলা সড়‌কের সংস্কা‌রেও ভীষন খু‌শি সেখানকার বা‌সিন্দারা। এমন উন্নয়ন ঘট‌ছে নগ‌রের সকল সড়‌কের।

বিসিসির নির্বাহী প্রকৌশলী আবুল বাশার জানান, যেদিন ৫ম পরিষদ দায়িত্ব নেয় সেদিন বিসিসির উন্নয়নে প্রায় ৮০০ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রীর বরাদ্দের ৭৯৭ কোটি টাকা প্রকল্পের প্রথম ধাপে ১৮টি প্যাকেজে ২৬৭ কোটির কাজ শুরু হয়েছে। এতে নগরের ১৬১টি সড়ক ও ৪৭টি ড্রেন নির্মাণ করা হবে। প্রায় ১০০ কিলোমিটার এ সড়কের পাশাপাশি ড্রেন রয়েছে ২১ কিলোমিটার।

আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সকল সড়কের নির্মাণ কাজ শুরু হতে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, গত ৪ মে থেকে নগরে যে উন্নয়ন কাজ শুরু হয়েছে এর আগে বরিশাল সিটি করপোরেশনে এত উন্নয়ন কাজ হয়নি। এটি সম্পন্ন নগরের চেহারা পাল্টে যাবে। তা ছাড়া এতোমধ্যে ঐতিহ্যবাহী বিবির পুকুর সংস্কার, মুক্তিযোদ্ধা পার্ক, আমতলা পার্ক, কাঞ্চন পার্ক এর সৌন্দর্যবর্ধন করা হয়েছে। নথুল্লাবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল ও রুপাতলী বাস টার্মিনাল সংস্কার হয়েছে। এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে।

আপাতত গুরুত্বপূর্ণ সড়ক সংস্কার ও ড্রেন পরিস্কারের মাধ্যমে জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ করা হলেও বর্ষা মৌসুম শেষ হলেই শুরু হবে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ। আগামী দিনগুলোতে নগরবাসীর জন্য আরও সুখবর আসবে এমনটা আশাবাদ ব্যক্ত করে মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ জানান, অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে নগরীর রাস্তাঘাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থায় উন্নতি ঘটবে। আশা করি দৃশ্যপটের পরিবর্তন ঘটবে। আমাদের কাজ সল্প মেয়াদী ও দীর্ঘমেয়াদী রয়েছে। গুরুত্ব বুঝে সে অনুযায়ী কাজগুলো করা হবে।

আমাদের যারা দাতা সংস্থা আছে তাদের সহ বিভিন্ন পর্যায়ে কথা বলছি। তারা সাহায্য করার জন্য হাত বাড়াচ্ছে। ইনশাল্লাহ উন্নয়ন কাজগুলো অব্যাহত থাকবে বলে জানান মেয়র।

নয়া শতাব্দী/এসআর

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ