রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১

ট্যাবলেট খেয়ে গৃহবধূর মৃত্যু, চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ

প্রকাশনার সময়: ০২ এপ্রিল ২০২৪, ১৪:০৭

ভোলায় গ্যাসের ট্যাবলেট খেয়ে রেণু বেগম (৩০) নামের এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। তবে এর পেছনে চিকিৎসকের অবহেলা রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মৃতের স্বজনরা।

সোমবার (১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ভোলা সদর হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

ভোলা সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. নজরুল ইসলাম রেণু বেগমের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

নিহত রেণু বেগম তজুমদ্দিন উপজেলার চর জহির উদ্দিন ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের দিনমজুর রতন মিয়ার স্ত্রী ও দুই সন্তানের জননী ছিলেন।

নিহতের স্বজনরা জানান, বেশকিছু দিন ধরে রেণু বেগম অসুস্থ ছিলেন। সোমবার সকালে ভুলবশত তিনি ঘরে থাকা গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাৎক্ষণিকভাবে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে তজুমদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক অবস্থা শোচনীয় দেখে তাকে সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। পরে স্বজনরা তাকে দুপুরের দিকে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।

স্বজনদের অভিযোগ, সদর হাসপাতালে ভর্তি করার পর সেখানকার মেডিকেল অফিসার ডা. শিবলী সাদিক আল-ইসলাম রোগী দেখে তাকে ৭টি টেস্ট করাতে বলেন। পরে স্বজনরা অ্যাপোলো ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সবগুলো টেস্ট করান। টেস্ট ব্যতীত রোগীকে আর কোনো চিকিৎসা দেওয়া হয়নি।

স্বজনরা আরও বলেন, রোগীকে টেস্টের নামে সময়ক্ষেপণ করেন চিকিৎসক। টেস্ট ব্যতীত কোনো চিকিৎসা না দেওয়ায় রেণু বেগমের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তারা।

এ বিষয়ে ভোলা সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. শিবলী সাদিক আল-ইসলাম বলেন, রোগীকে যে কয়টি টেস্ট দেয়া হয়েছে, প্রতিটি টেস্ট ভালো এসেছে। রোগীর অবস্থাও তখন ভালো ছিল। এর চেয়ে বেশি কিছু বলার নেই।

ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনির হোসেন মিঞা বলেন, এ ঘটনায় এখনো মৃত রেণু বেগমের স্বজনরা থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ করেনি। ঘটনাটি শুনে হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে ঘটনা খতিয়ে দেখা হবে।

নয়াশতাব্দী/এনএইচ/এনএস

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ

x
Naya Shatabdi