ঢাকা, রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

বউয়ের নাম হাত থেকে মুছলেন সাইফ, কিন্তু কেন?

প্রকাশনার সময়: ১৪ মে ২০২৪, ১৬:১৬ | আপডেট: ১৪ মে ২০২৪, ১৬:২৬

বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় তারকা জুটি কারিনা কাপু-সাইফ আলি খান। ইন্ডাস্ট্রিজের জেষ্ঠ্য জুটিদের মাঝে এখনও ভারতসহ উপমহাদেশে সমানভাবে জনপ্রিয় তারা। সম্প্রতি এই দম্পতির একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। পাপারাজিরা তাদের ঘনিষ্ঠ অন্তরঙ্গ মূহুর্তকে ক্যামেরাবন্দী করে। আর এতে ভিডিওটি নিয়ে ভক্তরাও বিভিন্ন ধরনের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে সামাজিক মাধ্যমে।

এবার পাপারাজিদের ক্যামেরায় আরও একটি বিষয় ধরা পড়েছে। সাইফের হাতে আঁকা একটি নতুন ট্যাটু বা উল্কির দেখা মিলেছে। কিন্তু এই উল্কির মধ্যে একটি রহস্য রয়েছে। কারণ, অনেক বছর আগে বউয়ের নাম হাতে ট্যাটু করে এঁকেছিলেন সাইফ। সাইফের হাতে কারিনা কাপুরের নামে অর্থাৎ তার স্ত্রীর ডাকনামের একটি ট্যাটু হিন্দিতে ‘কারিনা’ আঁকা ছিল। কিন্তু, এবার সেই ‘কারিনা’ ট্যাটুটি দেখা যায়নি, সে জায়গায় মিলেছে অন্য ট্যাটু। হঠাৎ বউয়ের নাম কেন হাত থেকে মুছে দিলেন সাইফ, তা নিয়ে বেশ প্রশ্ন সৃষ্টি হয়েছে ভক্ত ও নেটিজেনদের মনে।

কয়েক যুগ আগেও যুগলদের মাঝে একটি প্রচলন ছিল। তারা তাদের প্রিয়জনের নাম কিংবা নামের প্রথম অক্ষর হাতে লিখে রাখতেন। আবার কখনও সম্পর্কের ইতি ঘটলে হাত থেকে সেই অক্ষর বা নাম মুছে ফেলতেন সেই সময়ের প্রেমিক-প্রেমিকারা। কিন্তু এমন কি হল যে, হাত থেকে স্ত্রীর নামটাই মুছে দিলেন সাইফ?

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে বলা হয়েছে, কারিনার ট্যাটু মুছেননি সাইফ, বরং নতুন ছবির, নতুন চরিত্রের জন্য নতুন ট্যাটু ব্যবহার করেছেন এই নায়ক। যা কিনা অস্থায়ী। যদিও এই নিয়ে মুখ খোলেননি সাইফ। এই ছবি এখন ভাইরাল সোশাল মিডিয়ায়।

দুই সন্তানকে নিয়ে সুখের বেশ সুখেই সময় কাটাচ্ছেন সাইফিনা। জেহ আর তৈমুর তাদের নয়নমণি। তৈমুর সম্প্রতি সাত বছরে পা দিয়েছে। সাইফপুত্র তৈমুর জন্মেই সেলেব তালিকায় নাম লিখিয়ে ফেলেছে।

২০১২ সালে কোর্ট ম্যারেজ করেন কারিনা কাপুর এবং সাইফ আলি খান। কারিনাকে সর্বশেষ দেখা গিয়েছিল 'ক্রু' ছবিতে। অন্যদিকে, সইফ আলী খানকে তেলুগু ছবি দেবরা-তে জুনিয়র এনটিআর এবং জাহ্নবী কাপুরের সঙ্গে দেখা যাবে।

সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

নয়াশতাব্দী/ডিএ

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ